যে সব কারণে আপনার স্বাদের ফেসবুক আইডিটি খেয়ে ফেলতে পারে হ্যাকাররা,সকল ফেসবুক ইউজাররা দেখুন।

Blogger

আসসালামু আলাইকুম।
সবাই কেমন আছেন?হ্যাঁ,আমি ভালো আছি।আশা করছি আপনারাও ভালো আছেন।

টপিক বিষয়ক কিছু কথা

আমি জানি আপনারা অনেক ভদ্র ও অনেক জ্ঞানী মানুষ। মানুষ বলতেই ভুল হয়।তাই আমার পোস্টে কোথাও কোনো ভুল দেখলে ছোট ভাই মনে করে ক্ষমা করবেন এবং ভুলটা ধরিয়ে দিবেন।আমি সংশোধিত হব ইনশাহআল্লাহ।আর মনে রাখবেন ব্যবহারই কিন্তু বংশের পরিচয়।
চলুন এখন আমরা কাজে চলে
যাই,
যেসকল কাজ করলে আপনার ফেসবুক আইডিটি হ্যাক হতে পারে,তা নিচে দেখুন….

★একাউন্ট ফিশিং

google map এর ভিতর আপনার ভাড়ি অ্যাড করুন 

এই প্রক্রিয়ায় হ্যাকার আপনাকে বিভিন্নভাবে লিংক পাঠাবে।হতে
পারে ফেসবুক ম্যাসেজে কিংবা আপনার ইমেইলে।অবিকল ফেসবুক থেকে আসা নোটিফিকেশনের মতই লিংক আসে।ব্যবহারকারীরা বুঝতেই
পারেন না আসলে এসব
ফেসবুকের না।একে বলা হয়
ফিশার ওয়েব।অবিকল দেখতে একটি ওয়েবসাইটের মতো হলেও আসলে তা নয়।ফলে যদি ফেসবুক ভেবে লগ ইন করেন তাহলেই আইডি খোয়া যাবে আপনার।

★ওয়েবসাইটের শেয়ার

বাটন

কিছু ব্যক্তিগত ওয়েবসাইট রয়েছে যেখানে শেয়ার বাটন ক্লিক করা ঝুঁকিপূর্ণ।কারণ থার্ড পার্টি
ওয়েবসাইটে ছবি শেয়ার করতে সেখানে যে অপশন থাকে সেখানে ক্লিক করলেও অনেক সময় আপনার একাউন্ট ও পাসওয়ার্ড হ্যাক হতে পারে।

★কিছু ব্যক্তিগত ওয়েবসাইট রয়েছে যেখানে
সাইবার ক্যাফেতে লগ ইন।

অনেকে শুধু মোবাইলেই ফেসবুক চালাতে অভ্যস্ত।মাঝে মধ্যে কম্পিউটারে বসেন কেবল বিভিন্ন
সমস্যার সমাধান করতে।এসব
ক্ষেত্রে যারা পাবলিক কম্পিউটার যেমন- সাইবার ক্যাফেতে যান, অনেক সময় তারা একাউন্ট লগ আউট করতে ভুলে যান।অথবা অনেকেই লগ ইন করার সময়ে খেয়াল করেন না রিমেম্বার
পাসওয়ার্ড দেয়া রয়েছে।এভাবে আপনার অজান্তে অন্য কেউ আপনার একাউন্ট এ প্রবেশ করে হ্যাক করে নিতে পারে।

★ফেসবুক অ্যাপ

ফেসবুকে নানা অ্যাপ রয়েছে।এগুলো ব্যবহারের ক্ষেত্রে সব সময় সাবধান থাকা উচিত।অনেকেই এসব অ্যাপকে নিজের ইমেল
একাউন্ট পাসওয়ার্ডসহ নানান তথ্য দিয়ে দেন।যা অনেক ক্ষেত্রেই এরা বিভিন্ন বিজ্ঞাপন সংস্থার কাছে বিক্রি করে।এভাবে ফেসবুক অ্যাপ ব্যবহারের মাধ্যমে নিজের একাউন্ট হারাতে পারেন।

সময় স্বল্পতায় বেশি লিখতে পারলাম না, আশাকরি এগুলো থেকে আপনারা সতর্ক হবেন।

Leave a Reply